News71.com
 Sports
 03 May 16, 12:30 PM
 591           
 0
 03 May 16, 12:30 PM

ফুটবলে ইতিহাস গড়ে ইংল্যান্ডের চ্যাম্পিয়ন লেস্টার সিটি ক্লাব

ফুটবলে ইতিহাস গড়ে ইংল্যান্ডের চ্যাম্পিয়ন লেস্টার সিটি ক্লাব

স্পোর্টস ডেস্ক: খেলার জগতে এক রূপকথার জন্ম দিল লেস্টার সিটি। চেলসির মাঠে টটেনহ্যাম হটস্পার জিততে না পারায় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেছে মৌসুম জুড়ে একের পর এক বিস্ময়ের জন্ম দিয়ে আসা ক্লাওদিও রানিয়েরির দল।

ক্লাবের ১৩২ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো লিগের শিরোপা জিতল লেস্টার। ৩৮ বছরের মধ্যে এই প্রথম নতুন চ্যাম্পিয়ন পেল ইংলিশ ফুটবলের সর্বোচ্চ এই টুর্নামেন্ট।

৩৬ ম্যাচে ৭৭ পয়েন্ট লেস্টারের। চেলসির সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করার পর টটেনহ্যামের পয়েন্ট ৭০। শেষ দুই রাউন্ডে লেস্টার হারলে এবং টটেনহ্যাম জিতলেও দ্বিতীয় স্থানেই থাকতে হবে লন্ডনের ক্লাবটিকে।

মৌসুমের শুরুতে ইপিএলের শিরোপা লড়াইয়ে লেস্টারের পক্ষে বাজির দর ছিল ৫০০০:১। ফুটবল বিশেষজ্ঞ আর বাজিকরদের সব হিসাব-নিকাশ পাল্টে ‘পুঁচকে’ সেই দলই আজ উঠে বসল সাফল্যের চূড়ায়। ফুটবলের ইতিহাসে জন্ম দিল অন্যতম সেরা এক অঘটনের।

থাইল্যান্ডের কোটিপতি ব্যবসায়ী ভিচাই শ্রিবধানাপ্রভার মালিকানাধীন লেস্টার এ পর্যন্ত ইপিএলে মাত্র তিনটি ম্যাচে হেরেছে; একটি ঘরের মাঠে, দুটি প্রতিপক্ষের মাঠে। গত বছর অবনমন থেকে বাঁচার জন্য লড়া একটি দলের মৌসুম জুড়ে এতটা ধারাবাহিক, দুর্দান্ত পারফরম্যান্স ক্রীড়া ইতিহাসের অনন্য এক উদাহরণ।

শিরোপা লড়াইয়ে টিকে থাকতে হলে সোমবার রাতে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে জিততেই হতো টটেনহ্যামকে। ৩৫তম মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ থেকেই অতিথিদের এগিয়ে দেন হ্যারি কেইন। আর্জেন্টিনার ফরোয়ার্ড এরিক লামেলার বাড়ানো বল ধরে এগিয়ে আসা গোলরক্ষককে কাটিয়ে ফাঁকা জলে গোল করেন এই ইংলিশ স্ট্রাইকার। এবারের লিগের সর্বোচ্চ এই গোলদাতার এটি ২৫ নম্বর গোল।

বিরতির খানিক আগে প্রতিপক্ষের ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সন হিউং-মিন। মাঝ মাঠের কাছে চেলসির ডিফেন্ডার ব্রানিস্লাভ ইভানোভিচের ভুল পাস ধরে কেইন বাড়ান ক্রিস্তিয়ান বেনতেকেকে। আর ডেনমার্কের এই মিডফিল্ডারের পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বিনা বাধায় গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন দক্ষিণ কোরিয়ার মিডফিল্ডার হিউং-মিন।

প্রথমার্ধের এই ফলে মনে হচ্ছিল শিরোপা উৎসবে  মেতে উঠতে লেস্টারের অপেক্ষা বুঝি বাড়ল। কিন্তু ঘুরে দাঁড়িয়ে দুটি গোলই শোধ করে দিয়ে লেস্টার সমর্থকদের উচ্ছ্বাসে ভাসায় স্বাগতিকরা। 

৫৮তম মিনিটে ব্যবধান কমান গ্যারি ক্যাহিল। কর্নার থেকে উড়ে আসা বল প্রথম ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে জটলার মধ্য থেকে নিখুঁত শটে জালে জড়ান ইংল্যান্ডের এই ডিফেন্ডার।

একটু পর ডি বক্সের মধ্যে ফাঁকায় বল পেয়ে যান উইলিয়ান। কিন্তু ব্রাজিলের এই মিডফিল্ডারের বাঁ-পায়ের দুর্বল শট সহজেই ধরে ফেলেন টটেনহ্যাম গোলরক্ষক।

৮২তম মিনিটে দুর্দান্ত এক গোলে চেলসিকে সমতায় ফেরান এডেন হ্যাজার্ড। দিয়েগো কস্তার সঙ্গে একবার বল দেওয়া নেওয়া করে ডি-বক্সে ঢুকে অসাধারণ এক বাঁকানো শটে ডান পোস্ট ঘেষে বল জালে জড়ান বেলজিয়ামের এই মিডফিল্ডার। আর এই গোলেই দুই ম্যাচ বাকি থাকতে লেস্টারের শিরোপা নিশ্চিত হয়ে যায়।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন