international
 29 Jan 16, 12:27 PM
 1586             1

মালয়েশিয়াতে কর্মরত অবৈধ শ্রমিকদের বৈধতা দেয়ার ঘোষনা প্রধানমন্ত্রীর ।। খুশিতে সকলে

মালয়েশিয়াতে কর্মরত অবৈধ শ্রমিকদের বৈধতা দেয়ার ঘোষনা প্রধানমন্ত্রীর ।। খুশিতে সকলে

নিউজ ডেস্ক : মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে অবস্থানরত বাংলাদেশিসহ সকল বিদেশি শ্রমিকদের বৈধতা হবে। গতকাল মালয়েশিয়ার সংসদে এ ঘোষনা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। প্রধানমন্ত্রীর এমন ঘোষণার পরই দেশটিতে কর্মরত বাংলাদেশি সহ সকল বিদেশি শ্রমিকদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

জানাগছে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক তাদের সংসদে দাঁড়িয়ে ঘোষণা দিয়েছেন, মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অবৈধ যত শ্রমিক রয়েছে তাদের বৈধতা দেয়া হবে। তবে কত দিনের মধ্যে অবৈধরা বৈধ হতে পারবে, সে ব্যাপারে দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।

মালয়েশিয়ার প্রধান মন্ত্রীর এই ঘোষনার স্বভবত খুশি কুয়ালামপুরে অবস্হানরত বাংলাদেশী হাইকমিশনারও। তবে তিনি বাংলাদেশি শ্রমিকদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন,এর আগে একবার যখন মালয়েশিয়া সরকার অবৈধদের বৈধ হওয়ার সুযোগ দিয়েছিল। তখন বহু শ্রমিকের পাসপোর্ট, টাকা নিয়ে দালালেরা সটকে পড়ে। এবার যাতে তারা দালালদের সাথে যোগাযোগ না করে সরাসরি হাইকমিশনে যোগাযোগ করে, সে ব্যাপারে তিনি সাধারণ শ্রমিকদের কাছে অনুরোধ জানান। মালয়েশিয়া ভিত্তিক একটি গবেষণা সংস্থা ক্যারাম এশিয়া বলছে, দেশটিতে অবৈধ শ্রমিকদের মধ্যে বাংলাদেশিদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

জানাগেছে, মালয়েশিয়ায় বর্তমানে প্রায় তিন তিন লাখের মত অবৈধ বাংলাদেশি শ্রমিক রয়েছে।২০০৮ সালে হঠাৎ মালয়েশিয়া সরকার বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেয়া বন্ধ করে দেয়। এসময় অর্ধলক্ষাধিক শ্রমিকের নামে ঢাকায় কলিং ভিসা প্রস্তুত থাকলেও তারা আর বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেয়নি। অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় লোক পাঠানোর নামে সক্রিয় হয় মানবপাচারকারী চক্র। তারা গ্রামের সহজ সরল লোকজনকে স্টুডেন্ট, ট্যুরিস্ট, ভ্রমণ ভিসার নামে মালয়েশিয়া পাঠানো শুরু করে। অধিক মুনাফার লোভে তারা টেকনাফ দিয়ে ট্রলারে অসংখ্য মানুষকে মালয়েশিয়ায় পাচার করা শুরু করে। সমুদ্র পথে যেতে গিয়ে থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়ার উপকুলরক্ষিদের হাতে মারা পড়েন অসংখ্য বাংলাদেশি।থাইল্যান্ড আর মালয়েশিয়ার সীমান্তে পাওয়া যায় মানুষের গণকবর। সারা পৃথিবীতে তোলপাড় হয় মানব পাচার ইস্যু নিয়ে।এতে পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটে।

এসব ঘটনার পর মালয়েশিয়া সরকার পেশাভিত্তিক ভিসা ইস্যু শুরু করে। এ ভিসায় শুধু ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, আর্কিটেক্টসহ দক্ষ লোক যাওয়ার কথা থাকলেও দেশ থেকে গণহারে অদক্ষ শ্রমিক মালয়েশিয়া যাওয়া শুরু করে, যা এখনো অব্যাহত আছে। এতে অনেকেই সেখানে গিয়ে ঠিকমতো কাজ পাচ্ছেন না। আবার অনেকেই দেশটির বিভিন্ন জেলখানায় আটকে থেকে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন।

মালয়েশিয়ায় কর্মরত হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম জানিয়েছেন, এবার বৈধ করার প্রক্রিয়ায় যেসব কোম্পানিকে দায়িত্ব দেয়া হবে তাদের সাথে আমি ইতোমধ্যে একাধিক বৈঠক করেছি। বিগত সময়ে মালয়েশিয়া সরকারের সাধারণ ক্ষমার ঘোষণায় দুই লাখ ৬৪ হাজার অবৈধ শ্রমিক বৈধ হলেও বাকি অনেকেই পাসপোর্ট ও টাকা ঠিক জায়গায় দিতে না পারায় বৈধ হতে পারেনি। অনেকেই প্রতারিত হয়েছেন।
তিনি বলেন, সবাইকে অনুরোধ জানাব, কেউই যাতে দালালদের শরণাপন্ন না হয়। যেকোনো সমস্যার জন্য সরাসরি হাইকমিশনে যোগাযোগ করে। নতুবা এবারো বৈধ হওয়ার নামে অনেকেই প্রতারিত হতে পারেন বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')