international
 20 Mar 16, 11:22 AM
 299             0

৬০০ শরণার্থীকে লিবিয়া উপকুল থেকে উদ্ধার ।। শরণার্থীদের মধ্যে বাংলাদেশি নেই

৬০০ শরণার্থীকে লিবিয়া উপকুল থেকে উদ্ধার ।। শরণার্থীদের মধ্যে বাংলাদেশি নেই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : লিবিয়ার পশ্চিম উপকূলে চারটি নৌকা থেকে গতকাল শনিবার ৬০০ শরণার্থীকে উদ্ধার করা হয়েছে। লিবিয়া কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম জানায় শরণার্থীরা বাংলাদেশ ও আফ্রিকার সাব–সাহারা অঞ্চলের নাগরিক।তবে বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছে, উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে কোনো বাংলাদেশি নেই।

লিবিয়ার নৌবাহিনীর মুখপাত্র জানায় গতকাল দেশটির পশ্চিম উপকূল থেকে যেসব শরণার্থীকে উদ্ধার করা হয়, তারা বাংলাদেশ ও আফ্রিকার সাব–সাহারা অঞ্চলের দেশগুলোর নাগরিক। তিনি আরও বলেন, গত বুধ ও শুক্রবার এক উদ্ধার অভিযানে ৫৫০ জনেরও বেশি শরণার্থীকে উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার একটি নৌকায় আগুন লেগে গেলে ১৭ জন শরণার্থীকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। চারজন শরণার্থীর মরদেহও উদ্ধার করা হয়েছে।

তবে লিবিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর (শ্রম) এ এস এম আশরাফুল ইসলাম প্রথম আলোকে জানান, এ ঘটনায় উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে এখনো কোনো বাংলাদেশি নেই বলে তারা নিশ্চিত হয়েছেন। উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিরা কোন দেশের নাগরিক, জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা চাদ, ইরিত্রিয়া, সুদানসহ আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

এদিকে ইতালির কোস্টগার্ড দাবি করেছে, গতকাল শনিবার সিসিলি প্রণালি থেকে পৃথক চারটি অভিযান চালিয়ে ৯০০–এর বেশি শরণার্থীকে তারা উদ্ধার করেছে। তারা গতকাল সিসিলি প্রণালিতে পৃথক অভিযান চালিয়ে ৩৭৮ জন শরণার্থীকে উদ্ধার করেছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন বর্ডার এজেন্সি ফ্রনটেক্স ১১২ জন এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইইউএনএভিএফওআর মিশন বাকি ৪২০ জনকে উদ্ধারের কথা জানিয়েছে। তবে এসব শরণার্থীর নাগরিকত্ব সম্পর্কে ইতালি কিছু জানায়নি।

উত্তর আফ্রিকা ও গ্রিস থেকে উন্নত জীবনের আশায় শরণার্থীরা পাড়ি জমাচ্ছে ইউরোপে। তাদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে ইউরোপের দেশগুলো। লিবিয়ার পাচারকারীদের মাধ্যমে শরণার্থীরা ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে ঢোকার চেষ্টা করছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন সতর্কতা জারি করে বলেছে, লিবিয়া ইউরোপে শরণার্থী সংকটের অন্যতম উৎস হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')