bangladesh
 04 Oct 19, 01:45 PM
 9             0

খসে পড়ছে রোগাক্রান্ত পশুর মাংস, আতঙ্কে দিশেহারা এলাকাবাসী ।।

খসে পড়ছে রোগাক্রান্ত পশুর মাংস, আতঙ্কে দিশেহারা এলাকাবাসী ।।

নিউজ ডেস্কঃ নওগাঁয় গবাদি পশু ভাইরাসজনিত চর্মরোগে আক্রান্ত হয়ে এর শরীর থেকে মাংস পচে খসে পড়ছে। এ রোগে আক্রান্ত হয়ে মারাও গেছে বেশ কয়েকটি গরু। পশুর এই চর্মরোগের নাম জানাগেলেও নেই প্রতিষেধক। এতে আতঙ্কে দিশেহারা হয়ে পড়েছে এলাকার খামারিরা। জানাগেছে, ভাইরাসজনিত চর্মরোগটির নাম ‘লাম্পি স্কিন ডিজিজ’। এটি প্রথমে গরুর চামড়ার ওপরি অংশে টিউমার জাতীয় উপসর্গ ও বসন্তের মতো গুটি গুটি উপসর্গ দেখা দেয়। এরপর দু-একদিনের মধ্যেই গরুর শরীরজুড়েই গুটি গুটি হয়ে ঘা-এ পরিণত হচ্ছে। এ সময় গরুর শরীরে ১০৪ থেকে ১০৬ ডিগ্রি তাপমাত্রার জ্বর দেখা দেয় এবং গরু খাওয়া ছেড়ে দেয়। অনেক সময় গরুর বুকের নিচে পানি জমে ক্ষত সৃষ্টি হচ্ছে এবং ক্ষতস্থান পচে গিয়ে সেখান থেকে মাংস খসে পড়ছে। এ রোগ মশা, মাছি, আটালি, আক্রান্ত পশুর লালা, নাক-চোখের ডিসচার্জ, ষাড়ের বীর্য, আক্রান্ত গরু-মহিষের দুধ এবং ব্যবহৃত ইনজেকশনের সিরিঞ্জের মধ্যমে ছড়ায়। নওগাঁ জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. উত্তম কুমার সরকার বলেন, ‘ল্যাম্পি স্কিন ডিজিজ’ রোগটি মশা বাহিত ভাইরাস জনিত রোগ। সারাদেশে ব্যাপক আকারে এ রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। জেলার ১১টি উপজেলার প্রতিটি উপজেলাতেই ১০-১৫টি করে গরু আক্রান্ত হয়েছে। উপজেলা পর্যায়ে কর্মকর্তারা সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক ও লিফলেট বিতরণ করছেন। অফিসে আক্রান্ত পশু নিয়ে আসা হলে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, এ রোগে আক্রান্ত পশু জবাই করে খাইলেও মানুষের ক্ষতি হবে না। কারণ এ রোগটা মানুষের হয় না। তবে অসুস্থ পশুকে যেন কেউ জবাই না করে এবং কেউ যেন মাংস না খাই সে বিষয়ে নিষেধ করা হচ্ছে।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')