bangladesh
 15 May 18, 05:06 AM
 126             0

ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাড়িয়ে মানবিকতার নজির গড়লেন কবির গ্রুপের কর্নধার মোহাম্মদ শাহজাহান

ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাড়িয়ে মানবিকতার নজির গড়লেন কবির গ্রুপের কর্নধার মোহাম্মদ শাহজাহান

নিউজ ডেস্ক : মানবিকতার সর্বোৎকৃষ্ট নজির স্থাপন করলেন চট্টগ্রামের স্বনামধন্য ব্যবসায়ী কবির গ্রুপের কর্নধার মোহাম্মদ শাহজাহান। কোন দাবী ওঠার আগেই নিজেই স্বপ্রোনোদিত হয়ে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ালেন তিনি। যা বাংলাদেশের বর্তমান বাস্তবতায় একটি বিরল দৃ্ষ্ঠান্ত হয়ে থাকবে। পাশাপাশি বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের কাছে অনুকরনীয়ও বটে। আর্তমানবতার সেবায় শিল্পপতি মোহাম্মদ শাহজাহানের এই তড়িৎ পদক্ষেপ দেশ বিদেশের সকল সুধী সমাজ সাধুবাদ জানিয়েছেন। কবির গ্রুপের কর্নধর মোহাম্মদ শাহজাহানের এই পদক্ষেপে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার গুলো নতুন করে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখছে। শুধু কথায় নয় কাজেও করে দেখাচ্ছে এই ব্যবসায়ী গ্রুপটি। ইতিমধ্যেই দূর্ঘটনায় আহতদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা দিয়ে দ্রুত সারিয়ে তোলার কাজ শুরু হয়েছে। সরকারের সর্বোচ্চ মহলও তার এই কর্মকান্ডকে দেখছেন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার এই ব্যবসায়ির শুরু থেকেই পরোপকারি হিসেবে এলাকায় সুপরিচিত। যেকোন মানবিক বিপর্যয়ে তিনি সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন আর্তমানবতার সেবায় । জনস্বার্থে চেষ্টা করেন নিজের সেরাটাই দিতে । সাম্প্রতিক সময়ের আলোচিত ঘটনা রোহিঙ্গা সংকটে গোটা দেশবাসির পাশাপাশি সারা বিশ্ব দেখেছে তার মানবিকতা বোধ। সংকটের শুরুতে যখন পর্যাপ্তভাবে সরকারি ও আন্তর্জাতিক সাহায্য এসে পৌছায়নি ঠিক তখনই স্থানীয় কয়েকজন সাংসদের মাধ্যমে ও নিজে সরাসরিভাবে ১৭৪টি সুবিশাল কাভার্ডভ্যানে করে চাল, ডাল, ত্রিপল, চিডা, গুঁড়া সহ জরুরী সামগ্রী বিতরন করেছেন।যা ছিল রোহিঙ্গাদের দেওয়া বেসরকারি উদ্যোগে সর্ববৃহৎ ত্রান সরবরাহ। আর এই সমস্ত কাজ তিনি করেছেন প্রচার বিমুখভাবেই। সবসময় তিনি চান নিরবে নিভৃতে কাজ করে যেতে।

গতকালের ইফতার সামগ্রী বিতরন নিয়ে সৃ্ষ্ট দূর্ঘটনার পরও তার আচরনের কোন ব্যত্যয় ঘটেনি। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পক্ষ থেকে কোন প্রকার অভিযোগ বা দাবী ওঠার আগেই নিজের বিবেকের তাড়নায় তিনি স্বপ্রোনোদিত হয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন আহত ও নিহতদের। গতকালের দূর্ঘটনার রক্তের দাগ শুকোতে না শুকাতেই তিনি সাংবাদিক বৈঠক ডেকে ঘোষনা করেছেন আহত ও নিহত পরিবারকে সাহায্যের জন্য বিশেষ প্যাকেজ । যদিও মানুষের জীবন মুল্য । কোন কিছুর বিনিময়ে জীবনের ক্ষতি পূরনিয় নয়। তবুও কবির গ্রুপের এই তাৎক্ষনিক পদক্ষেপ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সহ জনমনে স্বস্থি এনেছে।

গতকাল সাংবাদিক সন্মেলন করে এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে দূর্ঘটনায় আহতদের সর্বোচ্চ সুচিকিৎসার নিশ্চিত করার পাশাপাশি নিহতদের পরিবার পিছু নগদ ৩ লাখ টাকা ও যোগ্যতা অনুযায়ী পরিবারের সদস্যদের চাকুরীর বন্দোবস্ত করে দেওয়ার কথা । যা বাংলাদেশের ইতিহাসে বিরল। যেখানে আমাদের দেশে মালিকপক্ষ কখনই ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করতে চায়না। দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনা থাকা সত্বেও রানা প্লাজা ও তাজরিন গার্মেন্টসের দূর্ঘটনার ক্ষতিগ্রস্তরা আজও উপযুক্ত ক্ষতিপুরণ পায়নি। সেই সময়ে কবির গ্রুপের এই ঘোষনা বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের কাছে অনুকরনীয় । সরকারের সর্বোচ্চ মহলও তাদের বিষয়টি দেখছেন সদর্থক দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে। যদিও বিভিন্ন মহল গতকালের দুর্ঘটনাকে পুঁজি করে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন প্রকার অপপ্রচার করার চেষ্টা করছেন ।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')