Bangladesh
 04 Dec 19, 05:51 PM
 164             0

ফেনীতে সরিষা-চীনা বাদাম চাষে ১৯ লাখ টাকা প্রণোদনা ।।

ফেনীতে সরিষা-চীনা বাদাম চাষে ১৯ লাখ টাকা প্রণোদনা ।।

নিউজ ডেস্কঃ ফেনীতে প্রান্তিক কৃষকদের সরিষা ও চীনা বাদাম চাষে উৎসাহিত করতে ১৯ লাখ ১৯ হাজার টাকা কৃষি প্রণোদনা দিচ্ছে ফেনী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। বুধবার (৪ ডিসেম্বর) থেকে এ প্রণোদনা কর্মসূচি শুরু হচ্ছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. জয়েন উদ্দিন জানান, রবি মৌসুমকে সামনে রেখে জেলার ২ হাজার সরিষা ও ২০০ বাদাম চাষিকে ১৯ লাখ ১৯ হাজার টাকা প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে। তিনি আরও জানান, সরিষা চাষ করার জন্য জন প্রতি কৃষককে ৮০২ টাকা মূল্যের উচ্চ ফলনশীল ১ কেজি বীজ ও ২০ কেজি ডিএমপি, ১০ কেজি এমওপি সার এবং বাদাম চাষের জন্য প্রতিজন কৃষককে ১ হাজার ৫৭৫ টাকা মূল্যের ১০ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএমপি, ৫ কেজি এমওপি সার প্রণোদনা হিসেবে দেওয়া হচ্ছে। জয়েন উদ্দিন জানান, সরিষা চাষে ফেনী সদরে ৬০০, ছাগলনাইয়ায় ২৫০, ফুলগাজী ২০০ জন, পরশুরামে ২৫০ জন, দাগনভূঞায় ২০০ জন ও সোনাগাজীতে ৫০০ জন কৃষক এ প্রণোদনা পাবেন। বাদাম চাষে ফেনী সদরে ৫০ জন, ছাগলনাইয়ায় ২০ জন, ফুলগাজীতে ১০ জন, পরশুরামে ১০ জন, দাগনভূঞায় ৩০ জন ও সোনাগাজীতে ৮০ জন কৃষক এ প্রণোদনা পাবেন। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, আমন ধানের পরে সরিষা ও বাদাম চাষের উপযুক্ত সময়। ইতোমধ্যে জেলার ৫০ ভাগ ধান কাটা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে ২ হাজার ২০০ বিঘা জমিতে সরিষা ও বাদাম চাষ করা হয়। তবে ফেনীতে বাদামের চেয়ে সরিষার আবাদ বেশি হয়। গত বছর লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে সরিষার আবাদ বেশি উৎপাদিত হয়েছে। এ বছরও কৃষকদের গত বছরের চেয়ে বেশি সরিষা আবাদ করার জন্য প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')