Technology
 21 Jun 16, 01:10 PM
 383             0

পৃথিবীর আরও একটি উপগ্রহের সন্ধান পেল বিজ্ঞানীরা

পৃথিবীর আরও একটি উপগ্রহের সন্ধান পেল বিজ্ঞানীরা

প্রযুক্তি ডেস্ক: এতদিন সবাই জানত পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ হলো চাঁদ। সম্প্রতি জানা গেল, পৃথিবীর নাকি আরও একটি উপগ্রহ রয়েছে। যেটি চাঁদ নয়। তবে একটি গ্রহাণু । চাঁদের মতো কোনো গ্রহাণুও যে পৃথিবীকে ঘিরে একটি নির্দিষ্ট কক্ষপথে চক্কর মারছে তা আমাদের চোখে ধরা পড়েনি এত দিন।

এই প্রথম জানা গেল, একটি গ্রহাণু পৃথিবীর চারপাশে নির্দিষ্ট কক্ষপথে চক্কর মারছে। বিজ্ঞানের ভাষায় যাকে বলা হয় 'নিয়ার আর্থ কম্পেনিয়ান' বা পৃথিবীর কাছের বন্ধু। এদের আরেকটি নাম আছে। সেটি হলো 'কোয়াসি স্যাটেলাইট'। এই গ্রহাণুটির নাম '২০১৬-এইচও-৩'। এ বছরের ২৭ এপ্রিল হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের হালিয়াকালায় প্যান-স্টার্স-এক টেলিস্কোপের মাধ্যমে এই গ্রহাণুটিকে প্রথম দেখা গিয়েছিল। কিন্তু এটি চাঁদের মতোই পৃথিবীর চারপাশে নির্দিষ্ট কক্ষপথে ঘুরছে তা আন্তর্জাতিক ভাবে মেনে নেওয়া হয়েছে ১৪ জানুয়ারি সান দিয়েগোর আমেরিকান অ্যাস্টোনমিক্যাল সোসাইটির বৈঠকে।

বিজ্ঞানীরা বলেছেন, মঙ্গল আর বৃহস্পতির মধ্যে যে গ্রহাণুপুঞ্জ রয়েছে সেখানে এই গ্রহাণুটির জন্ম হয়েছে। পৃথিবীর জন্মের প্রায় ১০ কোটি বছর পর বা তারও বেশ কিছু পরে কৌণিক ভরবেগ খোয়ানোর ফলে এটি গ্রহাণুপুঞ্জ থেকে বেরিয়ে ক্রমশই সূর্যের দিকে আসতে থাকে। প্রথমে তার সামনে পরে মঙ্গল গ্রহ। মঙ্গলের অভিকর্ষ বল তাকে কাছে টেনে রাখতে পারেনি। বরং ওই গ্রহাণুর শরীর থেকে কৌণিক ভরবেগ শুষে নিয়েছে। তার ফলে মঙ্গলের পাশ কাটিয়ে পৃথিবীর চৌহদ্দিতে ঢুকে পড়তে পেরেছিল। আনুমানিক গত ১০০ থেকে ২০০ বছর ধরে এটা পৃথিবীর চারপাশে নির্দিষ্ট কক্ষপথে ঘুরছে। হয়তো আরও কয়েক শ বছর ধরেই পৃথিবীর চারপাশে ঘুরবে। এই গ্রহাণুটি পৃথিবীর চারপাশে নির্দিষ্ট কক্ষপথে কোণে হেলে রয়েছে। তাই কখনও সে ওপরে উঠে আসছে আবার কখনও নিচে নামছে।

দূর থেকে দেখলে মনে হয় ব্যাঙের মতো লাফালাফি করছে। আকারে খুব ছোট। লম্বায় বড় জোর ১২০ ফুট (৪০ মিটার) থেকে ৩০০ ফুট (১০০ মিটার) পর্যন্ত। এটা এমন ভাবেই পৃথিবীর অভিকর্ষ বলের টানে ধরা রয়েছে, যাতে চাঁদ থেকে পৃথিবীর যা দূরত্ব তার ১০০ গুণের চেয়ে বেশি দূরে যেতে পারে না। আবার চাঁদের থেকে পৃথিবীর যা দূরত্ব তার ৩০ গুণের কম দূরত্বেও আসতে পারে না। এই গ্রহাণুটি সূর্যকে ঘিরেও চক্কর দিচ্ছে।

একই ভাবে আজ থেকে ১০ বছর আগে আরও একটি গ্রহাণু পৃথিবীর কাছে এসেছিল। তার নাম '২০০৩-ওয়াইএন-১০৭'। কিন্তু সেই গ্রহাণু আর আমাদের কাছে নেই অর্থাৎ পৃথিবী তাকেও আর টেনে রাখতে পারেনি। কিন্তু সদ্য আবিষ্কৃত 'অর্ধচন্দ্রটি'কে চাঁদের মতো পুরোদস্তুর উপগ্রহ বলা যাবে না। কারণ পৃথিবী আর চাঁদ যে সময় তৈরি হয়েছিল, এই গ্রহাণুটি তার অনেক পরে জন্মেছে।

আর এটি এসেছে গ্রহাণুপুঞ্জ থেকে। এর ঘনত্ব চাঁদের চেয়ে অনেক কম। লোহা ম্যাঙ্গানিজের মতো খনিজ পদার্থ প্রচুর পরিমাণে এতে থাকতে পারে। তবে পানি থাকার কোনো সম্ভাবনা নেই।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')