Bangladesh
 01 Jan 21, 06:54 PM
 50             0

নতুন বছরেই চালু হবে সুনামগঞ্জের দুটি গুরুত্বপূর্ন সেতু॥

নতুন বছরেই চালু হবে সুনামগঞ্জের দুটি গুরুত্বপূর্ন সেতু॥

নিউজ ডেস্কঃ সুনামগঞ্জের দক্ষিণে কুশিয়ারা নদীতে নির্মাণাধীন ‘রাণীগঞ্জ সেতু’ ও উত্তরে যাদুকাটা নদীতে নির্মাণাধীন ‘শাহ-আরেফিন অদ্বৈত মৈত্রী সেতু’ দুটি নতুন বছরে সম্পন্ন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছেন সংশ্লিষ্টরা। এই দুটি সেতুর কাজ শেষ হলে সুনামগঞ্জের দুটি অঞ্চলের সামনে নতুন দুয়ার খুলে যাবে। রাণীগঞ্জ সেতু হয়ে বিকল্প পথে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সহজ যোগাযোগ এবং যাদুকাটা সেতু দিয়ে সুনামগঞ্জের সীমান্ত এলাকায় যোগাযোগব্যবস্থা চালু হলে অর্থনীতিতেও বিরাট সম্ভাবনা নিয়ে আসবে। নতুন বছরে সেতু দুটি চালু হবে আশাবাদী স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সাধারণ মানুষজন।

জেলার ‘দক্ষিণের দুয়ার’ হিসেবে বিবেচিত কুশিয়ারা নদীতে রাণীগঞ্জ সেতুটির কাজ ২০১৬ সালে শুরু করে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। ৭০২ মিটার দৈর্ঘ্য ও সাড়ে ৩৩ ফুট প্রস্থের এই সেতুতে অ্যাপ্রোচ, কালভার্টসহ ১৫৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। ২০২১ সালের জুন মাসে কাজ শেষ হওয়ার কথা। এই প্রথমবারের মতো দেশে এই সেতুতে একসঙ্গে ‘আই গার্ডার’ ও ‘বক্স গার্ডারের’ সমন্বয় করা হচ্ছে। ৬০টি আই গার্ডারের মধ্যে ৫০টির নির্মাণ হয়ে গেছে। ১২টি স্ল্যাবের মধ্যে ১০টি স্ল্যাব নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। এখন ৩টি বক্স গার্ডার বা স্পাম বসানো শেষ হলেই সেতুর পুরো কাঠামো দৃশ্যমান হয়ে উঠবে। এই সেতুটির নির্মাণকাজ শেষ হলে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে ৫৫ কিলোমিটার দূরত্ব কমে প্রায় দুই ঘণ্টা সময় বাঁচবে। এতে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সহজ ও বিকল্প যোগাযোগ স্থাপিত হবে। এই সেতুটির প্রায় ৬০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে, যাদুকাটা নদীতে নির্মাণাধীন শাহ আরেফিন অদ্বৈত মৈত্রী সেতুটি। এটির নির্মাণকাজ শেষ হলে সুনামগঞ্জের প্রায় পুরো সীমান্ত এলাকা সরাসরি যোগাযোগের আওতায় আসবে। এতে এলাকার যোগাযোগ ও অর্থনীতিতে বিরাট পরিবর্তন নিয়ে আসবে। ২০১৮ সালে কাজ শুরু হয়ে ২০২০ সালে শেষ হওয়ার কথা ছিল। মহামারি দুর্যোগ করোনার কারণে বিলম্বিত হচ্ছে কাজ। তাই ২০২১ সালেই এই সেতুর কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')