Bangladesh
 20 Jul 20, 11:40 AM
 44             0

সিলেটে করোনার ভুয়া সার্টিফিকেট বিক্রির দায়ে ডা. আলমের জেল-জরিমানা।।

সিলেটে করোনার ভুয়া সার্টিফিকেট বিক্রির দায়ে ডা. আলমের জেল-জরিমানা।।

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটে টাকার বিনিময়ে বিদেশী যাত্রীদের করোনার ভুয়া সার্টিফিকেট দেয়ার পাশাপাশি নিজে করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরও চেম্বারে বসে রোগী দেখা এবং ওসমানী মেডিকেলের পরিচয় ব্যবহার করার অপরাধে ডা. এ এইচ এম শাহ আলমকে জেল ও জরিমানা করেছেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।রোববার (১৯ জুলাই) সন্ধ্যায় ঘণ্টাব্যাপী অভিযান চলে। নগরের মধুশহীদস্থ মেডিনোভা মেডিকেল সার্ভিসেস লিমিটেডের নীচ তলায় ডা. এ এইচ এম শাহ আলমকে সঙ্গে নিয়ে তার চেম্বারে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুনন্দা রায়ের নেতৃত্বে অভিযান চালায় র‍্যাব-৯। এসময়, তাকে গ্রেফতার করা হয়। সিলেট জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুনন্দা রায় বলেন, ডা. আলমকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তিনি তার অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন। পরে তাকে ৪ মাসের জেল ১ লাখ টাকা জরিমানা করার পাশাপাশি অনাদায়ে আরও ১ মাসের জেলা দেয়া হয়।

সিলেট র‍্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সামিউল আলম জানান, ডা. আলম বিদেশ যাত্রীসহ কয়েকজনকে টাকার বিনিময়ে করোনার ভুয়া সার্টিফিকেট দিয়েছেন বলে র‍্যাবের কাছে স্বীকার করেছেন। পরে তাকে নিয়ে তার চেম্বার মেডিনোভা মেডিকেল সার্ভিসেস লিমিটেডে অভিযান চালানো হয়।গত ১৪ জুলাই ডা. আলম করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরও তিনি নিয়মিত তার চেম্বারে রোগী দেখতেন। তিনি সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার হিসেবে যে পদ ব্যবহার করেন তাও ভুয়া বলে স্বীকার করেন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ডা. এ এইচ এম শাহ আলম নগরীর মধুশহীদ এলাকায় মেডিনোভা মেডিকেল সার্ভিসেস লিমিটেডের নিচতলায় নিজের চেম্বারে রোগী দেন। বিদেশ যাত্রীদের জন্য বিভিন্ন দেশ ও এয়ারলাইন্স করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক করার পর প্রবাসীদের টার্গেট করেন তিনি। 'করোনা নেগেটিভ' সার্টিফিকেট ব্যবস্থা করে দেয়ার কথা বলে বিভিন্ন মাধ্যমে তিনি বিদেশ যাত্রীদের কাছে খবর পৌঁছান। এই সার্টিফিকেট দেয়ার কথা বলে বিদেশ যাত্রীদের কাছ থেকে তিনি চার হাজার টাকা করে আদায় করেন।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')