bangladesh
 30 Mar 19, 05:38 AM
 63             0

স্টেশনে ট্রেন থামে, যাত্রী ওঠে নামে শুধু হয় না টিকিট বিক্রি  

স্টেশনে ট্রেন থামে, যাত্রী ওঠে নামে শুধু হয় না টিকিট বিক্রি   

নিউজ ডেস্ক: বিসকা স্টেশনটিতে ট্রেন থামে। যাত্রী উঠানামা করে। মালামাল পরিবহণ করা হয় এখান থেকে। কেবল বিক্রি হয় না টিকিট। এটি ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজলার বিসকা রেলস্টেশন। লোকবল সংকটের কারণে বিসকা রেলওয়ে স্টেশনের দাপ্তরিক কার্যক্রম র্দীঘদিন ধরে বন্ধ।প্রতিদিন এই স্টেশন হয়ে আন্তঃনগর, মেইল, কমিউটার ও লোকাল ট্রেনসহ ৩২টি ট্রেন চলাচল করে। স্টেশন চালু করার জন্য এলাকাবাসী মানববন্ধন ও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছে। কিন্তু স্টেশন চালুর বিষয়ে এখনো সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।গৌরীপুর রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ময়মনসিংহ-গৌরীপুর রেলওয়ে লাইনের গৌরীপুর ও শম্ভুগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যবর্তী স্টেশনটির নাম বিসকা। লোকবল সঙ্কটে প্রায় ১০ বছর ধরে বন্ধ রয়েছে এর কার্যক্রম। প্রতিদিন কয়েক শত যাত্রী এই স্টেশন হয়ে ময়মনসিংহ, গৌরীপুর, কিশোরগঞ্জ, ভৈরব, শ্যামগঞ্জ, পূর্বধলা, জারিয়া, নেত্রকোন, মোহনগঞ্জসহ বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করে।দিনে ৩২টি ট্রেন চলাচল করলেও শুধুমাত্র লোকাল ট্রেনগুলি এই স্টেশনে যাত্রাবিরতি করে। দাপ্তরিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় এই স্টেশন থেকে বিক্রি হয় না কোনো ট্রেনের টিকিট। যাত্রীরা বিনা টিকিটে ভ্রমণ করায় প্রতিবছর সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। বেদখল হয়ে যাচ্ছে রেলের সরকারী জমি-সম্পত্তি।স্থানীয়দের অভিযোগ, ‘এক সময়ের জমজমাট এই স্টেশন থেকে এখন নূন্যতম যাত্রী সেবাও পাওয়া যায় না। ট্রেন চলাচলে নেই কোনো সংকেত ব্যবস্থা। জানা যায় না ট্রেন আসা-যাওয়ার খবর। কোথাও যেতে হলে আগে থেকে স্টেশনে এসে অপেক্ষা করতে হয়। বিশ্রামাগার বন্ধ থাকায় বসতে হয় আশেপাশের দোকানে। বিনা টিকিটে ট্রেনে চড়ে কয়েকগুণ জরিমানা দিতে হয় যাত্রীদের। পাশাপাশি মালামাল বুকিং করতেও দুর্ভোগ পোহাতে হয়। বিসকা গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রশিদ বলেন, ‘বিসকা স্টেশনে টিকিট বিক্রি হয় না। তাই যে সকল ট্রেনযাত্রী বিসকা স্টেশন থেকে জারিয়া ট্রেনে চড়ে ময়মনসিংহ যায় তাদের বিনা টিকিটে ট্রেনে চড়ার কারণে টিকিটের টাকার দ্বিগুণ জরিমানা করা হয়।’

সরেজমিনে দেখা যায়, পাকা ভবনের বিসকা স্টেশনের বুকিং অফিস, স্টেশন মাস্টার অফিস, রিলে রুম, ব্যাটারি রুম, টিকিট কাউন্টার তালাবদ্ধ। ভবনের বেশ কয়েকটি কক্ষের দরোজা-জানালা নেই। যত্রতত্র মলত্যাগ ও ময়লা আবর্জনা ফেলে বিশ্রামাগারটি ভাগাড়ে পরিণত করেছে।বিসকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম বলেন, ‘বিসকা রেলস্টেশন চালু করার জন্য এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। পাশপাশি স্থানীয় সংসদ সদস্য থেকে শুরু করে ও মন্ত্রী মহোদয় পর্যন্ত যোগাযোগ করেছে। কিন্তু স্টেশন চালু হয়নি।আমরা স্টেশনটি দ্রুত চালু করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি।ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশনের সুপারিনটেনডেন্ট জহুরুল ইসলাম বলেন, ‘লোকবল সংকটের কারণে বিসকা স্টেশনের কার্যক্রম দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যদি লোকবল নিয়োগ করে তাহলে এই স্টেশন পুনরায় চালু করা হবে।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')