bangladesh
 11 Mar 18, 10:45 AM
 37             0

থানায় আটকে নির্যাতনের অভিযোগে মাদারীপুরের কালকিনির ওসিসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা।।

থানায় আটকে নির্যাতনের অভিযোগে মাদারীপুরের কালকিনির ওসিসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা।।

নিউজ ডেস্কঃ মাদারীপুরের কালকিনি থানা হাজতে নয়জনকে আটক করে নির্যাতনের অভিযোগে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্দু বালাসহ আট জনের বিরুদ্ধে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে। আজ রবিবার দুপুরে কালকিনির বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের খুনেরচর গ্রামের নুরু মৃধা মামলাটি করেন। মামলার বিবরণে জানা গেছে,স্থানীয় কোন্দলের জেরে প্রায় এক বছর আগে কালকিনির বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের খুনেরচর গ্রামের নুরু মৃধার ছেলে কবির মৃধার চোখ উপড়ে ফেলা হয়। এই ঘটনায় কালকিনি থানায় বাঁশগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সুমন বেপারীসহ প্রভাবশালী কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। সেই মামলা আপস করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু তাতে রাজি না হওয়ায় মামলা তুলে নিতে ২ মার্চ রাতে কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কৃপা সিন্দু বালা দুই চোখ হারানো অন্ধ কবির মৃধার ভাই বাঁশগাড়ীর ইউপি সদস্য খবির মৃধাসহ নয় জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যান।

পরে থানায় নিয়ে তাদের নির্যাতন চালিয়ে ৪ মার্চ দুপুরে অন্য মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেলে পাঠানো হয়। এ ঘটনার বিচার দাবি করে নুরু মৃধা চীফ জুডিসিয়াল আদালতে মামলা করলে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রিট মো. জাকির হোসেন মামলাটি গ্রহণ করে আদেশের জন্য সময় ধার্য্য করেন। মামলার অন্য আসামিরা হলেন, কালকিনি থানার ওসি (তদন্ত) হারুন অর রশিদ, খাসেরহাট তদন্ত কেন্দ্রর তদন্ত ওসি মহিদুল ইসলাম, এসআই বিল্লাল হোসেন শিকদার, এএসআই রাজিবুল ইসলাম। এছাড়াও কালকিনির আউলিয়ারচর গ্রামের রশিদ মুন্সি, বাঁশগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুমন বেপারী, রাজন বেপারীকেও আসামী করা হয়েছে। মামলা পরিচালনা করেন মাদারীপুর আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. ওবায়দুর রহমান খান। এ ব্যাপারে মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সরোয়ার হোসেন বলেন, আদালতে মামলার জন্য আবেদন করা হয়েছে। তবে এখনো আদেশ হয়নি। তাই আদেশ না পাওয়া পর্যন্ত আমি এ ব্যাপারে কিছু বলতে পারব না।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')