bangladesh
 30 Aug 19, 01:27 PM
 28             0

মঠবাড়িয়ায় বিয়ে করতে চেয়ে প্রতারণা করায় এক নারী পুলিশ সদস্য কারাগারে।।

মঠবাড়িয়ায় বিয়ে করতে চেয়ে প্রতারণা করায় এক নারী পুলিশ সদস্য কারাগারে।।

নিউজ ডেস্কঃ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় প্রতারণার মাধ্যমে কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে দয়ের হওয়া মামলায় মিমি আক্তার (২০) নামের এক নারী পুলিশ সদস্য ও তার পিতাকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার (২৯ আগষ্ট) ওই নারী ও তার পিতা আদালতে জামিনের জন্য গেলে মঠবাড়িয়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আল-ফয়সাল ওই নারী পুলিশ সদস্য ও তার পিতার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, মঠবাড়িয়া উপজেলার বেতমোর গ্রামের নুরুল ইসলাম ফরাজীর ছেলে ফিরোজ হোসেন দীর্ঘদিন ধরে সিঙ্গাপুর প্রবাসী। সেখানে থাকাবস্তায় ফিরোজের বাবা-মা ছেলের বিয়ের জন্য সিকদারের মেয়ে মিমি আক্তারকে পছন্দ করেন এবং উভয়পক্ষ পারিবারিকভাবে বিয়ের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেন। পরে মেয়ের বাড়িতে গিয়ে স্বর্ণালংকার পরিয়ে তাদের এনগেজমেন্ট সম্পন্ন হয়। মেয়ের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হলে বিয়ে রেজিষ্ট্রি সম্পন্ন হবে বলে কথা হয়। সর্বমোট মেয়ে ও মেয়ের বাবা ওই ছেলের কাছ থেকে মালামালসহ চার লাখ টাকা নেয়।

এদিকে মিমির পুলিশে চাকুরী হয়। ফিরোজ দেশে এসে মিমিকে বিয়ে করতে চাইলে সে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। পরবর্তীতে মেয়ের বাড়িতে গিয়ে মোবাইল ফোন, স্বর্ণালংকার, বিদেশ থেকে প্রেরিত টাকা ফেরত চাইলে মেয়ে ও মেয়ের বাবা-মা ওই টাকা দিতে অস্বীকার করেন এবং মামলা দিয়ে হয়রানির হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়।এ ঘটনায় ফিরোজের বাবা নুরুল ইসলাম ফরাজী বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মিমি ও তার মা-বাবাকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত মঠবাড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')