bangladesh
 09 Nov 19, 07:55 PM
 8             0

ময়না তদন্তের জন্য স্কুলছাত্র আবরারের মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন॥

ময়না তদন্তের জন্য স্কুলছাত্র আবরারের মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন॥

নিউজ ডেস্কঃ ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল স্কুলের শিক্ষার্থী নাইমুল আবরার রাহাতের মরদেহ দাফনের ৭ দিন পর কবর থেকে উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। শনিবার (৯ নভেম্বর) সকাল থেকে স্বজন ও এলাকাবাসীর ভিড় লেগে ছিল স্কুলছাত্র আবরার রাহাতের কবর ঘিরে। আদালতের নির্দেশে দুপুর ২টায় নোয়াখালী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইলিশীয়া রিসিলের নেতৃত্বে আবরারের মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়। এ সময় রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা থেকে আসা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সোনাইমুড়ি থানার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন। গত বুধবার আদালত নির্দেশ দেয় মরদেহ তোলার। এছাড়াও আবরারের মৃত্যুর ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা ও বর্তমান মামলাকে সংযুক্ত করে আগামী পহেলা ডিসেম্বরের মধ্যে মোহাম্মদপুর থানাকে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। দাফনের আগে ময়নাতদন্ত না করায় ক্ষোভ জানান এলাকাবাসী। তবে দেরিতে হলেও এ কার্যক্রম ন্যায় বিচারে সহায়ক হবে বলে মনে করছেন স্বজনেরা।

মামলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ঢাকা মোহাম্মদপুর থানা পরিদর্শক মো. আবদুল আলীম জানান, আদালতের নির্দেশনা মেনে সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। আবরারের মরদেহ নোয়াখালীর মাইজদী সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে আবারও একই স্থানে তাকে দাফন করা হবে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা। গত ১ নভেম্বর শুক্রবার বিকেলে ঢাকায় রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ক্যাম্পাসে কিশোর আলোর একটি অনুষ্ঠান চলাকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায় আবরার। সে ওই স্কুলের নবম শ্রেণির দিবা শাখার শিক্ষার্থী ছিল। ঢাকার আগারগাঁওয়ে পরিবারের সাথে থাকত সে। গত ২ নভেম্বর নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর ধন্যপুর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় তাকে।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')