bangladesh
 15 May 19, 01:07 PM
 273             0

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব থেকে বিতর্কিতদের বাদ দেয়ার নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী॥

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব থেকে বিতর্কিতদের বাদ দেয়ার নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী॥

নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠন ছাত্রলীগের সদ্য ঘোষিত ৩১০সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি থেকে বিতর্কিতদের বাদ দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন ছাত্রলীগের অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংগঠনের নতুন পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষনার পর থেকে গত দুই দিনে সৃ্ষ্ট বিভিন্ন অনাকাঙ্খিত ঘটনার প্রেক্ষিতে আজ বুধবার দুপুরে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গনভবনে ডেকে সংগঠনের এ নির্দেশ দিয়েছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা । উল্লেখ্য ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর পর ঐদিন রাতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মারামারির ঘটনা ঘটেছে ।

নতুন কমিটি গঠনে নানান অনিয়ম ও অসঙ্গতির অভিযোগ তুলে মাঠে নামে পদবঞ্চিতদের একটি পক্ষ। তারা ছাত্রলীগের নব ঘোষিত ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের হাকিম চত্বর থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মধুর ক্যান্টিনের সামনে গেলে নতুন কমিটিতে পদ পাওয়া একজন সহ-সভাপতি ও দুইজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে মিছিলে হামলা চালানো হয় লাঞ্ছিত করা হয় ডাকসুর সদস্য ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় অর্থ বিষয়ক উপ-সম্পাদক ও ঢাবির সুফিয়া কামাল হলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক তিলোত্তমা শিকদার এবং ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক এবং রোকেয়া হল ছাত্রলীগের সভাপতি বিএম লিপি আক্তারকে। পরে তারা সেখান থেকে বিক্ষোভ করে রাজু ভাস্কর্যের সামনে জড়ো হন।


এছাড়া ঐদিনই বিদায়ী কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফ উদ্দিন বাবু সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য শুরু করলে বর্তমান নেতাদের অনুসারীরা ব্যানার ছিঁড়ে নেয় এবং চেয়ার উঠিয়ে হামলা চালায়। এরপর শুরু হয় দুই পক্ষের হাতাহাতি যা মারামারিতে রূপ নেয়। এ সময় বর্তমান নেতৃত্বের অনুসারীদের হামলায় আহত হন- ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক বিএম লিপি আক্তার, ক্রীড়া সম্পাদক তানভীর শাকিল, সদস্য তিলোত্তমা শিকদার, সদস্য নিপো ইসলাম তন্বী, সদ্য বিদায়ী কমিটির কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক রাকিব হোসেন, রোকেয়া হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী দিশা, বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী শায়লা। যদিও পরে এই ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। কমিটিকে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।


এদিকে পরিস্থিতিকে সামান্য ঘটনা বলে তাচ্ছিল্য করায় আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফের কড়া সমালোচনা করেছেন পদবঞ্চিত শামসুন নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নিপু ইসলাম তন্বী। আজ বুধবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এক মানববন্ধনে এ সমালোচনা করেন তিনি। বিতর্কিত কমিটির প্রতিবাদে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলনে বোনদের ওপর নির্মম হামলা ও শারীরিক লাঞ্ছনার প্রতিবাদে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। নিপু ইসলাম তন্বী বলেন, আর কতটুকু লাঞ্ছিত হলে তাদের মনে হতো যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নারীদের ওপর নির্যাতন হয়েছে? প্রশ্ন ওঠে- আমরা মারা গেলে কি সত্যতা প্রমাণ হতো যে এখানে একটি বিশাল ঘটনা ঘটেছে?

ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনটির পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষনার পর থেকে গত দুই দিনে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনা ও বিশৃঙ্খলা নজরে আসতেই আজ প্রধানমন্ত্রী নিজে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে ডেকে কমিটি থেকে বিতর্কিতদের বাদ দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন।আজ দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গনভবনে সভাপতি-সাধারন সম্পাদককে ডেকে এ নির্দেশ দিয়েছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা । প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা জানতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনাকে সাধুবাদ জানিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় স্ট্যাাটস দিয়েছেন অনেক পদবঞ্চিত ছাত্রলীগনেতা । অনেকে আবার এটাকে নিজেদের নৈতিক বিজয় হিসেবেও দেখছেন।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')