bangladesh
 18 May 19, 08:26 PM
 101             0

গৌরীপুরে মাদক ব্যবসায়ীর ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগ নেতা খুন

গৌরীপুরে মাদক ব্যবসায়ীর ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগ নেতা খুন

নিউজ ডেস্কঃ ময়মনসিংহের গৌরীপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মাদক ব্যবসায়ী নূরু মিয়ার (৪৫) ছুরিকাঘাতে নুরুজ্জামান জনি (৩২) নামক সাবেক ছাত্রলীগ নেতা খুন হয়েছেন।গতকাল শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের নহাটা বাজারে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে বিক্ষুদ্ধ জনতা ওইদিন রাত ১০টার দিকে জড়িতদের বাড়িঘরে অগ্নি সংযোগ করেন। নিহত জনি কুমড়ী গ্রামের মৃত সিদ্দিকুর রহমান মাস্টারের একমাত্র ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নহাটা গ্রামের মৃত আজিম উদ্দিনের ছেলে মাদক ব্যবসায়ী নুরু মিয়ার সঙ্গে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে জনির বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে গৌরীপুর থানায় পরস্পর বিরোধী মামলাও রয়েছে। ঘটনার দিন জনি ইফতার শেষে বাড়ি থেকে বের হয়ে নহাটা বাজারে রুকন মিয়ার চায়ের দোকানে বসেছিলেন। এ সময় মাদক ব্যবসায়ী নূরু মিয়ার নেতৃত্বে ১৫/২০ জন সশস্ত্র লোক পরিকল্পিতভাবে জনিকে ডেকে নিয়ে সুজন মাহমুদের কম্পিউটারের দোকানের সামনে তার ওপর হামলা চালায়। এ সময় জনির বুকে ছুরিকাঘাত ও মুখে ক্ষুর দিয়ে আঘাত করে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করা হয়।

প্রতিপক্ষের হাত থেকে বাঁচতে জনি দৌঁড়ে গিয়ে বাজার সংলগ্ন স্থানীয় খোকন মিয়ার পুকুর পাড়ে ওঠেন। সেখানে সে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জনিকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে, জনির মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে রাত ১০ টার দিকে বিক্ষুদ্ধ শত শত জনতা হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে নূরু মিয়া, কাঞ্চন মিয়া, জিলু মিয়া, শিরু মিয়া, মোজাম্মেল, শামছু, হেলিম ও আব্দুল খালেকের বাড়ি-ঘর পুড়িয়ে দেয়। গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, নিহত জনি ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মী হিসেবে গৌরীপুর থানায় কর্মরত ছিলেন। পূর্ব শত্রুতার জের হিসেবে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ঘটনার দিন রাতে বিক্ষুব্ধ জনতা নূরু মিয়া ও তার সহযোগীদের বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের আটক করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে বলে জানান তিনি।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন

')