আন্তর্জাতিক
 12 Oct 17, 10:18 AM
Print
 29             0

প্রবল আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে উল্টোরথে।। ভারতকে শান্তির বার্তা পাক সেনাপ্রধানের

প্রবল আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে উল্টোরথে।। ভারতকে শান্তির বার্তা পাক সেনাপ্রধানের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: তর্জন-গর্জন করে অবশেষে ঢোঁক গিলল পাকিস্তান।শুধু ডাকাডাকি সার হল, দেখা মিলল না ছিঁটেফোঁটা বর্ষণ।পাকিস্তানের জন্য এটা নতুন কিছু নয়, ভারতের বিরুদ্ধে চিরকাল বিষোদ্গার করতেই অভ্যস্ত প্রতিবেশী এই দেশটি। তবে এবার প্রবল আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়ে ঘরে ও বাইরে বেকাইদায় পাকিস্তান। কোন রাগদাগ না করেয় পাক সেনা প্রধানের মুখে শর্তহীন সন্ধির বানী। সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক পাকিস্তানের মুখেই শোনা যাচ্ছে সন্ধির বাণী।এতদিন ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধের আস্ফালন করে এলেও বুধবার সুর নরম করে শান্তি আলোচনার পক্ষেই সওয়াল করেন পাক সেনপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া।

করাচিতে গতকাল অর্থনীতি ও প্রতিরক্ষা নিয়ে আলোচনার জন্য অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে বক্তব্য রাখেন বাজওয়া। তিনি বলেন, “আমরা ভারতের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ ভাবে থাকতে চাই। সীমান্ত বিবাদ সমাধানে আলোচনার পক্ষেই মত আমাদের।” দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিয়ে তিনি বলেন, সুনিশ্চিত পরিকল্পনা মাফিক চলতে হবে দেশকে। নিরাপত্তায় থাকা ছোট ছোট গলদ খুঁজে তা ভয়াবহ রূপ ধারণ করার আহেই নির্মূল করতে হবে।

সম্প্রতি, সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে রাষ্ট্রসংঘে চরমে উঠে ভারত-পাক দ্বৈরথ। তবে আন্তর্জাতিক মঞ্চে নয়াদিল্লির সামনে কার্যত কোণঠাসা হয়ে পড়ে ইসলামাবাদ। এমনকি ‘পরম বন্ধু’ চিনও পাকিস্তানের পাশে দাঁড়ায়নি। তার উপর রয়েছে মার্কিন চাপ। ফলে একপ্রকার বাধ্য হয়েই শান্তির বুলি আওরাচ্ছে পাকিস্তান বলে মত ওয়াকিবহল মহলের। তবে শান্তির কথা বললেও, ভারতের বিরুদ্ধে আঙুল তুলেন পাক সেনাপ্রধান। তাঁর দাবি, শান্তি আলোচনায় সায় নেই নয়াদিল্লির। তবে সীমান্তে লাগাতার সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন নয়ে কোনও মন্তব্য করেননি তিনি।

পাক সেনাপ্রধানের বয়ানকে চাপের মুখে নতিস্বীকার বলেই মনে করছে ভারতের প্রতিরক্ষা ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞরা। তবে তাঁদের একাংশ মনে করছেন, শান্তির কথা বললিও কাশ্মীরে ভারতের বিরুদ্ধে ছায়াযুদ্ধ চালিয়ে যাবে পাক সেনা ও আইএসআই। ফলে তৈরি থাকতে হবে ভারতকেও। উল্লেখ্য, সদ্য এক রিপোর্ট পেশ করেছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। ওই রিপোর্টে বলা হয়েছেনয়াদিল্লির কাছেই গোপন সুড়ঙ্গ তৈরি করছে পাক সেনা। ওই সুড়ঙ্গে থাকবে পারমাণবিক মিসাইল ও বোমা। এই পদক্ষেপেই নিজেদের অভিসন্ধি স্পষ্ট করে দিয়েছে সে দেশ।

Comments

নিচের ঘরে আপনার মতামত দিন